সয়াবিন তেলের দাম নিয়ন্ত্রণে রাখতে মনিটরিং সেল গঠন এবং নীতিমালা তৈরি করতে দায়ের করা রিট শুনানির জন্য আগামীকাল দিন ধার্য করেছেন হাইকোর্ট। মঙ্গলবারের (৮ মার্চ) মধ্যে রিট আবেদনটি সংশোধন করে নিয়ে আসতে বলেছেন আদালত।

সোমবার (৭ মার্চ) বিচারপতি ফারাহ মাহবুব ও বিচারপতি এস এম মনিরুজ্জামানের হাইকোর্ট বেঞ্চে রিট আবেদনটি শুনানির জন্য ওঠে। রিটকারী আইনজীবী সৈয়দ মহিদুল কবীরকে উদ্দেশ্য করে আদালত বলেন, আগামীকাল রিট আবেদনটি নির্ভুল করে   নিয়ে আসুন, আমরা শুনবো। এখানে সবার স্বার্থ জড়িত।

গতকাল ৬ই ফেব্রুয়ারি সয়াবিন তেলের দাম নিয়ন্ত্রণে রাখার উদ্দেশ্যে মনিটরিং সেল গঠন করা হয়। এছাড়াও এ বিষয়ে নীতিমালা তৈরি করতে হাইকোর্টে রিট দায়ের করা হয়।

সুপ্রিম কোর্টের তিন আইনজীবী অ্যাডভোকেট সৈয়দ মহিদুল কবীর, অ্যাডভোকেট মনির হোসেন ও অ্যাডভোকেট মোহাম্মদ উল্লাহ সয়াবিন তেলের দাম নিয়ন্ত্রণে এ রিট দায়ের করেন। বাণিজ্য সচিব, ভোক্তা অধিকার কর্তৃপক্ষসহ সংশ্লিষ্টদের রিটে বিবাদী করা হয়েছে।

 গত ৩ই মার্চ তিনজন আইনজীবী সয়াবিন তেলের দাম বাড়ানোর বিষয়টি হাইকোর্টের নজরে আনেন। সয়াবিন তেলের দাম বাড়ানো নিয়ে একটি ইংরেজি দৈনিকে প্রকাশিত প্রতিবেদন আদালতের নজরে আনেন  তারা। প্রতিবেদনে বলা হয়, রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের সুযোগ নিয়ে বাংলাদেশের এক শ্রেণির অসাধু ব্যবসায়ী সয়াবিন তেলের দাম অস্বাভাবিক হারে বাড়িয়ে দিয়েছেন। ২ মার্চ বাজারে ক্রেতাদের কাছ থেকে ১৭৫ টাকা করে এক লিটার খোলা সয়াবিনের দাম রাখা হয়েছে। অথচ সরকার এক লিটার খোলা সয়াবিনের দাম ১৪৩ টাকা নির্ধারণ করে দিয়েছে।

আদালত আইনজীবীদের যথাযথ প্রক্রিয়ায় রিট করার পরামর্শ দেন। সে অনুযায়ী রিট করেছেন সংশ্লিষ্ট আইনজীবীরা।