চট্টগ্রামের মিরসরাইয়ের সমুদ্র উপকূলে গড়ে ওঠা বঙ্গবন্ধু শিল্প নগরে আগামী মার্চ মাস থেকে শুরু হতে যাচ্ছে উৎপাদন। আর এতে করে খুলে যাচ্ছে দেশের অর্থনীতির নতুন এক সম্ভবনার দুয়ার। প্রকল্প দুইটির একটি বাংলাদেশের ম্যাগডোনাল্ড স্টিল এবং অন্যটি ভারতের এশিয়ান পেইন্টস। এশিয়ান পেইন্টস সুত্র জানায়, ২০ একর জায়গা জুড়ে এশিয়ার সবচেয়ে বড় রং তৈরীর কারখানা স্থাপন করেছে এশিয়ান পেইন্টস। এই কারখানায় রং এবং এর অন্যান্য উপকরণ তৈরী করা হবে।

ম্যাকডোনান্ড স্টিল এর প্রজেক্ট ম্যানেজার আবদুল্লাহ আল মামুন বলেন, ১০ একর জমিতে ১১৪ কোটি টাকা বনিয়োগে স্টিল কারখানা নির্মাণের কাজ প্রায় শেষ। আগামী মার্চে আমরা এই কারখানায় উৎপাদন শুরু করতে পারবো বলে আশা করছি। এই কারখানায় এমএস প্লেট তৈরী করা হবে। কারখানায় ৬২ জন লোকের কর্মসংস্থান হবে বলে জানান তিনি। প্রকল্পের পরিচালক (পিডি) আবদুল্লাহ আল মাহমুদ ফারুক জানিয়েছেন, চলতি বছরের মার্চে প্রথমবারের মতো উৎপাদন শুরু করতে যাচ্ছে এশিয়ান পেইন্টস। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এই কারখানা উদ্বোধনের কথা রয়েছে। এছাড়াও আরো কয়েকটি প্রতিষ্ঠানের নির্মাণ কাজ শেষ পর্যায়ে রয়েছে। বেজা সূত্রে জানা গেছে, বর্তমানে প্রায় ৬ হাজার একর জমি ইতোমধ্যে মাটি দিয়ে ভরাট করা হয়েছে।

বর্তমানে সড়ক, সেতুসহ অন্যান্য অবকাঠামো নির্মাণ করা হচ্ছে। কর্তৃপক্ষ বিভিন্ন নির্মাণাধীন কারখানায় গ্যাস ও বিদ্যুতের লাইন বসিয়ে দিচ্ছে। এছাড়াা শিল্পনগরীর ভেতরে রাস্তার জন্য সোলার সিস্টেম স্থাপন করা হয়েছেছে। এশিয়ান পেইন্টস এবং ম্যাকডোনাল্ড স্টিল ছাড়াও, হেলথকেয়ার ফার্মাকে ৪০ একর, বাংলাদেশ অটো ইন্ডাস্ট্রিজকে ১০০ একর, এসকিউ ক্যাবলকে ৪০ একর, জিংউয়ানকে ১০ একর, মডার্ন সিনটেক্সকে ২০ একর, নিপ্পন এবং ম্যাকডোনাল্ড স্টিলকে ১০০ একর ও বার্জার পেইন্টসকে ৩০ একর জমিতে তাদের কাজ পরিচালনা করতে দেখা গেছে। এ ছাড়া সমুদা ফুডস এবং বার্জার পেইন্টস আগামী বছরের (২০২৩) মধ্যে তাদের কারখানা চালু করার পরিকল্পনা করছে। বিশেষ জোনগুলোর মধ্যে, ১ হাজার ১৫০ একরের বেপজা অর্থনৈতিক অঞ্চল নির্মাণকাজ শুরু করেছে। অন্যদিকে ৫০০ একরের বিজিএমইএ গার্মেন্ট ভিলেজ এবং ৫০০ একরের এসবিজি অর্থনৈতিক অঞ্চলেও মাটি ভরাট করে কারখানা নির্মানের উপযোগী করা হয়েছে।

বসুন্ধরা গ্রুপ দ্রুতই তাদের ৫০০ একরের জোন প্রস্তুত করছে। বেজার সহকারী প্রকৌশলী ফেরদৌস ওয়াহিদ বলেন, আমরা ইতোমধ্যেই নির্মাণাধীন কারখানার জন্য গ্যাস ও বিদ্যুৎ নিশ্চিত করেছি। আপাতত কারখানাগুলোতে ভুগর্ভস্থ পানি সরবরাহ করা হবে। মিরসরাই অর্থনৈতিক অঞ্চলে দেশি-বিদেশি অনেক নামীদামি প্রতিষ্ঠান বিনিয়োগ করছে। বিদেশি বিনিয়োগকারীদের মধ্যে রয়েছে জাপানের নিপ্পন, ভারতের এশিয়ান পেইন্টস, যুক্তরাজ্যের বার্জার পেইন্টস ও সিঙ্গাপুরের উইলমার। আর দেশি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে রয়েছে পিএইচপি, বসুন্ধরা গ্রুপ ও টিকে গ্রুপ।